চারটি হাসপাতালে ৬ জনের মৃত্যু

গভীর রাতে খুমেক হাসপাতালে অক্সিজেন সরবরাহ নিয়ে উত্তেজনা

সর্বশেষ আপডেটঃ
KMCH_Ualo
ছবি : খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল - সংগৃহিত

ঊষার আলো প্রতিবেদক : খুলনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় চারটি হাসপাতালে ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২১ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। অপরদিকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ২০০ শয্যার করোনা ডেডিকেটেড ইউনিটে অক্সিজেন সরবরাহ বিঘেœর ঘটনা নিয়ে গভীর রাতে অক্সিজেন ব্যাংকের স্বেচ্ছাসেবীদের সাথে ব্যাপক উত্তেজনার ঘটনা ঘটেছে। যেটি তাৎক্ষণিকভাবে ফেসবুক লাইভ করা হয়। এতে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর স্বজনদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে।
প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, খুলনা ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালে একজন, শহীদ শেখ আবু নাসের হাসপাতালের করোনা ইউনিটে একজন, জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে একজন ও গাজী মেডিকেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।
খুলনা ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালটিতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১২৭ জন। যার মধ্যে রেড জোনে ৫২ জন, ইয়ালো জোনে ৪১ জন, আইসিইউতে ১৮ জন এবং এইচডিইউতে ১৬ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। গত ২৪ ঘন্টায় ভর্তি হয়েছেন ২০ জন। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১২ জন।
এদিকে মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে ফেসবুকে লাইভে দেখাগেছে, খুলনা ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালের সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইনে সরবরাহ বিঘœ সৃষ্টি হয়। এতে অক্সিজেন সরবরাহে সমস্যা দেখা দেয়। এ নিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, বেসরকারি অক্সিজেন ব্যাংকের স্বেচ্ছাসেবীর সাথে বসচা হয়।
স্বেচ্ছাসেবীরা অভিযোগ করে বলেন, বর্তমান আরএমও;র কারণে সংকট সৃষ্টি হয়েছে। তার লোকজন সেবচ্ছাসেবীদের হাসপাতালে ঢুকতে দিচ্ছে না, রাতে স্বেচ্ছাসেবীদের গায়ে হাত তোলা হয়েছে। এসব নিয়ে তুমুল হট্টগোল হয়। ফেসবুক থেকে অক্সিজেনর অভাবে ও্রই সময় রোগী মারা যাচ্ছে বলেও প্রচার করা হয়। কিন্তু এ প্রচারের সত্যতা পাওয়া যায়নি।

পরে খুলনা ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালের সমন্বয়ক ডা. ফরিদ উদ্দিন বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করেন।
কিছু কারিগরী ক্রটি মেরামতের পর হাসপাতালে অক্সিজেন সরবরাহ স্বাভাবিক হয়।