গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যা, শাশুড়ি গ্রেফতার

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো রিপোর্ট : রাজশাহীর বাঘায় রিপা নামে ১ গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় স্বামী পালিয়ে গেলেও আটক করা হয়েছে শাশুড়ি জরিনা বেগমকে। গতকাল শুক্রবার দুপুরে উপজেলার কিশোরপুর গ্রাম থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কিশোরপুর গ্রামের কালু মন্ডলের ছেলে লালন উদ্দিনের (৩২) সাথে তার স্ত্রী রিপা বেগমের (২৮) সম্পর্ক নানা কারণে অবনতির দিকে যায়। ঘটনার পর এক সময়ে তার স্ত্রী গত প্রায় এক-দেড় মাসেরমত অসুস্থ হয়ে শয্যাশায়ী ছিলেন। সর্বশেষ গতকাল শুক্রবার দুপুরে রিপার স্বামী ও শাশুড়ি মিলে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।
অভিযোগে বলা হয়, রিপা বেগমকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। এরপর মা এবং ছেলে মিলে তারা লাশটির গলায় ওড়না পেঁচিয়ে প্রথমে ঘরের তীরের সাথে টাঙিয়ে রাখে। এরপর নিজেরাই সেই ওড়না কেটে লাশ মাটিতে নামিয়ে প্রতিবেশীদের ডাকাতে শুরু করে। এতে অনেকের মধ্যে সন্দেহের সৃষ্টি হয়। ইতোমধ্যে রিপার স্বামী বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়।
এদিকে খবর পেয়ে বাঘা থানা পুলিশের এসআই আব্দুর রউফ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে পাঠিয়েছেন। একইসাথে রিপার শাশুড়ি জরিনা বেগমকে (৬০) আটক করে থানায় নিয়ে যান। তিনি বলেন, এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা যাচ্ছে। এ ব্যাপারে চকনারায়নপুর গ্রামের বাসিন্দা জরিনার মামা আনারুল ইসলাম বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেছে।
বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। মামলা নেয়ার পর নিহত গৃহবধূর শাশুড়িকে আটক করেছে পুলিশ। তবে তার স্বামী এখন পর্যন্ত পলাতক রয়েছেন। তাকে আটকের চেষ্টা করছে পুলিশ।

 

 

 

 

(ঊষার আলো-এম.এইচ)