দেড় যুগ আগের ভোগদখলীয় সম্পত্তি দখলের চেষ্টা

সর্বশেষ আপডেটঃ
25
0
ছবি: খুলনা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মুজিবুল হক।
সংবাদ সম্মেলনে প্রধানন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

ঊষার আলো রিপোর্ট: খুলনা মহানগরীর সোনাডাঙ্গা ট্রাক টার্মিনালের পাশে প্রায় দেড় যুগ আগে ক্রয়কৃত সম্পত্তি জবর দখলের চেষ্টা করছে কতিপয় ভূমিদস্যু। প্রভাবশালী এই দস্যুদের কাছে অসহায় হয়ে স্থানীয় রাজনীতিক, জনপ্রতিনিধি, থানা পুলিশ, আদালতে গিয়েও পরিত্রাণ পায়নি ক্ষতিগ্রস্ত দু’টি পরিবার।

সোমবার (০৩ মে) দুপুরে খুলনা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা চেয়ে অভিযোগ করেছেন ক্ষতিগ্রস্তরা। জীবনের চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে দাবি করেছেন তারা। নগরীর হাজী ইসমাইল লিংক রোডের ১৫০, সিদ্দিকিয়া মহল্লা মোঃ মুজিবুল হকের পক্ষে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তার ছেলে মোঃ ইসলাম হোসেন। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, সোনাডাঙ্গা থানাধীন দেনারীবাদ মৌজায় ১৯৯৫ সালে তিনি ০.০৪১৭৫০ একর জমি এবং তার শ্যালক রমজান আলী ০.১২৩৭৫ একর জমি ক্রয় করেন। সেই থেকে ঘেরাবেড়া দিয়ে ঘরবাড়ী নির্মাণ করে ভোগদখলে রয়েছেন তারা। গত ২৩ এপ্রিল সকালে নগরীর গোবরচাকা পল্লী মঙ্গল স্কুলের পেছনের হাজীবাড়ীর মৃত খোরশেদ আলীর ছেলে শেখ মোঃ মিজানুর রহমান মিজু (৫০), মুজগুন্নীর ২নং রোডের ১৩৫নং হোল্ডিংয়ের মৃত এমএ লতিফের ছেলে ফয়সাল কাদের (৪৫), মৌলভীপাড়া সুলতান আহম্মেদ রোডের জয়নাল আবেদীনের ছেলে রোকন, নবপল্লী এলাকার মৃত মুনসুর আলীর ছেলে মোঃ পারভেজ (৪০) ও পাইকগাছার মালত গ্রামের সলিম গাজীর ছেলে আঃ বাকেরের (৪৬) নেতৃত্বে অজ্ঞাতনামা ভূমিদস্যু সহযোগীদের নিয়ে তাদের ঘেরাবেড়া ও নির্মিত ঘরবাড়ি কিছু অংশ ভেঙ্গে জবর দখলে অপচেষ্টা করে। দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত সন্ত্রাসীদের বাঁধা দিলে তাদের প্রতি মারমুখী আচরণ করে। জমি ছেড়ে না দিলে তাদের সকলকে মেরে লাশ গুম করার প্রকাশ্যে হুমকি দিয়ে সেদিনের মতো চলে যায় ভূমিদস্যূরা। এঘটনায় সোনাডাঙ্গা থানায় তারা দু’টি লিখিত অভিযোগ করেন। এতে আরও ক্ষিপ্ত হয়ে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো, র‌্যাব-পুলিশ দিয়ে ধরে নিয়ে শায়েস্তা করা ও জীবননাশের হুমকী দিচ্ছে সন্ত্রাসীরা। তাই অসহায় হয়ে প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ