ভূতের বন!

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : এ প্রথিবীতে অনেক কিছুই আছে। তবে ‘ভূতের বন’ও রয়েছে পৃথিবীতে এমনটা হয়ত প্রথম শুনবেন। আসলে সৃষ্টির অনেক রহস্যই আমরা এখনো বুঝি না।

আর তখন এগুলোকে অলৌকিক ভাবতে শুরু করি।

বন মানেই আমরা বুঝি সবুজে ঘেরা গাছ ও ডাল-পালা-পাতায় ভরা চোখ জুড়ানো সবুজ। তবে আমেরিকাতে রয়েছে এক আশ্চর্য বন। যেখানে গাছগুলোতে কোনো শাখা বা পাতা নেই। পুরো বন শুকনো ও ধূসর বর্ণের।

প্রাণহীন গাছগুলো নিয়েই বনটি ছড়িয়ে পড়ছে প্রায় ২১ হাজার একরেরও বেশি এলাকাজুড়ে। আর তাই ভূতুড়ে বনটি বিশ্বের পরিবেশবিদদের কাছে উদ্বেগের এক বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সম্প্রতি উত্তর ক্যারোলিনার ডিউক বিশ্ববিদ্যালয়ের জীববিজ্ঞান ও ভূত বন সম্পর্কিত গবেষণার প্রধান গবেষক অ্যামিলি উরি বলেছেন, সমুদ্রের স্তর বৃদ্ধি পাওয়ায় বনটি প্রসারিত হচ্ছে। অলিগেটর নদীর তীরে বন্যজীবনের গাছপালায় প্রচুর পরিমাণে সমুদ্রের লবণ ঢুকে যাচ্ছে। ফলে মাটির অভ্যন্তরে উপস্থিত বীজ ও শিকড় অতিরিক্ত লবণ পেয়ে গাছ শুকিয়ে প্রাণহীন হয়ে উঠছে।

২১ হাজার একর বন এখন এক ঘোস্ট ফরেস্টে পরিণত হয়েছে। ২০১১ সালে ‘হারিকেন আইরিন’ এখানে বিপর্যয় ঘটিয়েছিল। তারপর থেকেই সমুদ্রের পানি ও লবণের ফলে ক্রমশ প্রাণহীন হয়ে যাচ্ছে বনটি।

জলবায়ু পরিবর্তনের ফলেই এমনটি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পরিবেশবিদরা।

(ঊষার আলো-এফএসপি)