সাহারায় মিলল সাত লাখ বছরের পুরনো অস্ত্রের সন্ধান!

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : সাহারা মরুভূমির পরিত্যক্ত সোনার খনিতে মিলল প্রাচীন অস্ত্র। জানা যায়, লক্ষাধিক বছর আগে সেগুলো ব্যবহার করতেন আফ্রিকার মানুষরা।

সুদানের উত্তর পূর্ব দিকে আটবারা শহর থেকে প্রায় ৭০ কিলোমিটার দূরে প্রত্নতাত্ত্বিকরা এমন কিছু অস্ত্র খুঁজে পেয়েছেন যার বয়স প্রায় ৭ লাখ বছর! এই অস্ত্রগুলো ব্যবহার করত হোমো ইরেকটাস প্রজাতির প্রাচীন মানুষরা।

বছরখানেক আগে আটবারার পূর্ব মরুভূমিতে কাজ শুরু করেন প্রত্নতাত্ত্বিকরা আর সেখানেই একটি অঞ্চল সোনার খনির জন্য বিখ্যাত। সোনার লোভে এখানে বহু মানুষ গর্ত খোঁড়েন। এবং সেখান থেকেই এই উৎখননের কাজ শুরু হয়েছিল।

একটি পরিত্যক্ত সোনার খনি থেকে এই অস্ত্রগুলো পাওয়া যায়। এর মধ্যে প্রত্নতাত্ত্বিকদের সব চেয়ে আকর্ষক মনে হয় বেশ কিছু অস্ত্র। এগুলো ওজনে বেশ ভারী ও আকারে অনেকটা আমন্ড বাদামের মতো। এদের সাইডগুলো চেঁচে দেওয়া হয়েছে ও মাথা ছুঁচলো। এ জাতীয় অস্ত্র সাধারণত স্পিয়ারহেড হিসেবে ব্যবহার হত। অর্থাৎ এগুলো লাঠির ডগায় বেঁধে বল্লমের মতো বানিয়ে ব্যবহার করা হত। এছাড়া আরও পাওয়া গেছে হ্যান্ড অ্যাক্স।

মাটির নিচে কী কী লুকানো রয়েছে, সেটা জানার জন্য বিজ্ঞানীরা optically stimulated luminescence পদ্ধতি ব্যবহার করেন। এ পদ্ধতির দ্বারাই দেখা মেলে, এখানে মাটির স্তর এবং স্থাপত্যের বয়স ৩ লক্ষ ৯০ হাজার! পোল্যান্ডের যে গবেষক এই কাজে নেতৃত্ব দিচ্ছেন তাঁর মতে, উপরের স্তরের নীচে যে স্তরগুলি রয়েছে, সেগুলো আরও বেশি পুরনো। এগুলোর বয়স কত হতে পারে সেটা নির্ভর করছে যে অস্ত্রগুলি কী ভাবে ব্যবহার হয়েছে তার উপরে।

এই অঞ্চল থেকে যে যে অস্ত্র পাওয়া গিয়েছে অনুমান করা হচ্ছে সেগুলো ব্যবহার করত হোমো ইরেকটাসরা। হোমো ইরেকটাসরা এসেছিল আজ থেকে প্রায় দু’লক্ষ বছর আগে। প্রথম প্রথম এদের আফ্রিকায় দেখা গেলেও এরা ধীরে ধীরে ছড়িয়ে পড়ে আফ্রিকার ক্রান্তীয় অঞ্চলে, ইয়োরোপে এবং এশিয়ায়।

(ঊষার আলো-এফএসপি)