ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদে মোংলায় ২৭৪ একর জমির ধান ও ১৮ বসতবাড়ির ক্ষতি  

সর্বশেষ আপডেটঃ
মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা: ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাবে টানা কয়েকদিনের বৃষ্টিতে মোংলায় কাঁচা বসতঘর ও ধানের বেশ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার জানান, কয়েকদিনের বৃষ্টিতে উপজেলার চিলা, বুড়িরডাঙ্গা, সুন্দরবন ও মিঠাখালী ইউনিয়নের বিভিন্ন জায়গায় মাঠের পাকা ও আধা পাকা ধানের বেশ ক্ষতি হয়েছে। এ চারটি ইউনিয়নের প্রায় ২শ ৭৪ একর জমির ধান নষ্ট হয়েছে। এছাড়া বৃষ্টিতে ও বৃষ্টির পানি জমে ১৮ টি কাঁচা বসতঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে উপজেলার ৮শ ৯০ জন মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন।  ঘর বিধ্বস্তসহ মাঠের ধানের ক্ষতির শিকার হয়েছেন এসব মানুষ।
বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন(বাপা) বাগেরহাট জেলার আহবায়ক  নুর আলম শেখ বলেন, এমনিতেই লবণাক্ততার কারণে এ এলাকায় তেমন একটা ধান হয়না। তারপরও কৃষকেরা নিজের জমি কিংবা বর্গা/লিজ নেয়া জমিতে শ্রম, অর্থ ব্যয় ও পরিচর্যা করে যে ফসল ফলিয়েছেন তাও জাওয়াদের প্রভাবে নষ্ট হয়ে গেছে। এখন পাকা ধান ঘরে তোলার সময়, এ সময় এসে এমন ক্ষতি কৃষকদের বড় ধরণের ক্ষতি ও দুর্ভোগে ফেলেছে। তারা যাতে সরকারের সাহায্য সহযোগিতা পায় স্থানীয় প্রশাসনের কাছে ক্ষতিগ্রস্তদের হয়ে সেই দাবী জানাচ্ছি।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার বলেন, ক্ষয়ক্ষতির রিপোর্ট জেলা প্রশাসক মহোদয়ের কাছে পাঠানো হয়েছে। কোন ধরণের বরাদ্দ পেলে অবশ্যই তা ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে বন্টন করে দেয়া হবে।