নগরীর ১৩ ও ১৮ নং ওয়ার্ড বিএনপির কর্মী সভা 

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ প্রচার সম্পাদক কৃষিবিদ শামীমুর রহমান শামিম বলেছেন, দ্রব্যমূল্যের চরম ঊর্ধ্বগতি, নজিরবিহীন লোডশেডিং, জ্বালানি সংকট, সীমাহীন লুটপাট ও অর্থপাচারের প্রতিবাদে সারাদেশ যখন  প্রতিবাদমুখর, তখন অবৈধ দখলদার সরকার জোরপূর্বক ক্ষমতায় থাকতে বেসামাল হয়ে জনগণের ন্যায়সঙ্গত শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে গুলিবর্ষণ করে পাখির মতো বিএনপি নেতাকর্মীদের হত্যা করছে। তিনি নেতাকর্মীদের প্রশ্ন রাখেন আর কত মায়ের কোল খালি হবে এর কোনো প্রতিকার কি হবে না? হত্যাকারীদের কি বিচার হবে না? আমরা কি বসে থাকব? এসময় নেতাকর্মীরা হাত তুলে বিচার দাবি করলে তিনি বলেন আমরা বসে থাকব না, রাজপথে আন্দোলন করব। যারা গণতন্ত্র হত্যা করেছে আমরা তাদের ছাড়ব না।

খুলনা মহানগরীর ১৩ ও ১৮ নং ওয়ার্ড বিএনপির কর্মী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, সারাদেশে সরকারবিরোধী চলমান আন্দোলন স্তিমিত করার অপচেষ্টা হিসেবে পরিকল্পিতভাবে ভোলায় স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আব্দুর রহিম ও ছাত্রদল নেতা নুরে আলমকে হত্যা করেছে পুলিশ। যাদের নির্দেশে এবং যারা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে তাদের বিচারের আওতায় আনা হবে। ক্ষমতাসীন সরকার ফের ইভিএম ব্যবহার করে ভোট ডাকাতির মাধ্যমে ক্ষমতায় যেতে
চায়। কিন্তু এবার সেই খায়েশ তাদের পূরণ হবে না। অবশ্যই নির্দলীয় নিরপেক্ষ
সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) বিকাল সাড়ে ৪টায় খালিশপুর থানা বিএনপি কার্যালয়ে ১৩ নং ওয়ার্ড বিএনপির এবং সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় নবপল্লী কমিউনিটি সেন্টারে ১৮নং ওয়ার্ড বিএনপির কর্মী সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

খুলনা মহানগর বিএনপির আহবায়ক এড. শফিকুল আলম মনার সভাপতিত্বে দুটি কর্মী সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন খুলনা মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব শফিকুল আলম তুহিন। বিশেষ বক্তা ছিলেন মহানগর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক তারিকুল ইসলাম জহির। সভায় বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন স. ম. আ. রহমান, কাজী মাহমুদ আলী, আজিজুল হাসান দুলু, তৈয়েবুর রহমান, আবুল কালাম জিয়া, বদরুল আনাম খান, মাহাবুব হাসান পিয়ারু, চৌধুরী শফিকুল ইসলাম হোসেন, একরামুল হক  হেলাল, মাসুদ পারভেজ বাবু, জি এম কামরুজ্জামান টুকু, শেখ জাহিদুল ইসলাম, হাফিজুর রহমান মনি, শাহিনুল ইসলাম পাখি, কে এম হুমায়ন কবির, বিপ্লবুর রহমান কুদ্দুস, সৈয়দ সাজ্জাদ আহসান পরাগ, হাবিবুর রহমান বিশ্বাস, শেখ জামাল উদ্দিন, মোল্লা ফরিদ আহমেদ, আব্দুর রহমান ডিনো, তারিকুল ইসলাম,  জাহিদ হোসেন, মিজানুর রহমান মিলটন, শফিকুল ইসলাম শফি, আক্কাস আলী, ফারুক হোসেন, মুজিবর রহমান, আজিজা খানম এলিজা, মাসুদ খান বাদল, এড. কানিজ ফাতেমা আমিন, আব্দুল আহাদ শাহিন, আরিফুল ইসলাম সোহেল, শফিকুল ইসলাম নিপুন, সিদ্দিকুর রহমান, আনজিরা খাতুন, নিঘাত সীমা, হাসনা হেনা, আফরোজা, পরুল বেগম প্রমুখ। দুটি ওয়ার্ডে কর্মীসভা পরিচালনা করেন মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক শেখ সাদী। কর্মীসভায় হাফিজুর রহমান মনিকে আহবায়ক করে ১৮নং ওয়ার্ডে ৩১ সদস্যের আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয় এবং ১৩ নং ওয়ার্ডের কমিটি (শনিবার) ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত হয়।