মহাকাশে বিড়ালের শব্দ রেকর্ডের দাবি নাসার

সর্বশেষ আপডেটঃ

ঊষার আলো ডেস্ক : গত ৮ আগস্ট আন্তর্জাতিক বিড়াল দিবসটি মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসাও সাড়ম্বরেই পালন করেছে। বিশেষ একটা সম্পর্ক রয়েছে নাসা ও বিড়ালের মধ্যে। আগেই মহাকাশে একটি নীহারিকার নামকরণ করা হয়েছে বিড়ালের সাথে। সেই ক্যাটস আই নেবুলার একটি ভিডিও শেয়ার করেন বিজ্ঞানীরা।

আন্তর্জাতিক বিড়াল দিবসেই সে ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে। ভিডিওতে একটি শব্দ শোনা যায়।
আর যা ‘বিড়ালের শব্দ’ বলে দাবি করা হয়েছে। মূলত নীহারিকা থেকে নির্গত তরঙ্গ কীভাবে শব্দে রূপান্তরিত হচ্ছে, তাই ভিডিও আকারে প্রকাশ করে দেখান বিজ্ঞানীরা। মূলত স্পেস ডেটা দেখেই বিজ্ঞানীরা এ জিনিসগুলো বোঝেন। কিন্তু সেগুলো সাধারণ মানুষের বোধগম্য হয় না। কাজে বিজ্ঞানীরা মানুষের কাছে আরও সহজ ভাবে বিষয়টি বোঝানোর জন্য ওই তরঙ্গকে সোনিফিকেশনে রূপান্তরিত করেছেন।

নাসার জানায়, ক্যাটস আই নেবুলা হল একটি গ্রহের নীহারিকা। আর এখানে সূর্যের মতোই তারা গঠিত হয়। ভিডিওটি দেখলেই বুঝতে পারবেন যে, শব্দতরঙ্গ যতই উজ্জ্বল আলোর দিকে এগিয়ে যায়, ততই তার শব্দ আরও প্রকট থেকে প্রকট হতে থাকে। তার সাথে একই সময়ে নাসার চন্দ্র এক্স-রে অবজারভেটরির এক্স-রে ডেটাতে একটি কর্কশ শব্দও শোনা যায়।

পৃথিবী থেকে ৩ হাজার ২৬২ আলোকবর্ষ দূরে ড্রাকোর উত্তর নক্ষত্রমন্ডলে অবস্থিত ক্যাটস আই নেবুলা। এ নীহারিকার নামকরণ যেহেতু বিড়ালের সাথে সম্পর্কযুক্ত, কাজে সেখান থেকে আগত শব্দ পৃথিবীর মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে আন্তর্জাতিক বিড়াল দিবসকেই বেছে নিয়েছে নাসা।

প্রসঙ্গত, আন্তর্জাতিক প্রাণী কল্যাণ তহবিল ২০০২ সাল থেকে প্রতি বছর ৮ অগস্ট আন্তর্জাতিক বিড়াল দিবস হিসাবে উদযাপন করা হয়। এর উদ্দেশ্য হল, বিড়ালদের সম্পর্কে মানুষের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করা ও তাদের সংরক্ষণের উপায় সম্পর্কে মানুষকে শিখতে সাহায্য করা।

সূত্র : টিভি নাইন ও হিন্দুস্তান টাইমস।

(ঊষার আলো-এফএসপি)