দৌলতপুরে করোনার অজুহাতে সকল পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি, ক্রেতারা অসহায়

সর্বশেষ আপডেটঃ
61
0

ঊষার আলো প্রতিবেদক : করোনাকে আর লকডাউনের অজুহাতে দৌলতপুর সকল পণ্যের মূল্য বৃদ্ধিকে কেন্দ্র করে এক শ্রেনীর অসাধু ব্যবসায়ীরা ক্রেতাদের চোখে ধূলো দিয়ে করে চলছে রমরমা ব্যবসা।
যার ফলে এ সকল অসাধু ব্যবসায়ীদের বন্দিজালে আটকে পড়ে নিত্য প্রয়োজনীয় পন্য ক্রয়ে ক্রেতারা হয়ে পড়েছে চরম অসহায়। দেশের চলমান করোনা ভাইরাস যেন চরম আতঙ্ক। এ ভাইরাসের আগ্রাসন ও হিংস্র থাবায় দেশের চাকা অনেকটাই দূর্বল হয়ে পড়েছে। প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা ও মৃত্যুর সংখ্যা। করোনা সংক্রমনে আক্রান্ত হয়ে প্রতিদিনই মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে হারিয়ে যাচ্ছে স্বজনদের প্রিয়জনেরা। তবুও করোনা সংকটের মধ্যে মানুষের দিন নিপেতিত করার জন্য থেমে নেই জীবন জীবিকার সংগ্রাম। দেশের চলমান এ মহামারীর মধ্যে সরকারী চাকুরীজীবি ছাড়া অধিংকাশ মানুষই রয়েছে চরম অর্থনৈতিক সংকটে। চরম এ অর্থনৈতিক সংকটে থাকলেও এ মানুষগুলো তাদের পরিবারের সদস্যদের আহার যোগাতে নিত্যপ্রয়োজনীয় কিনতে চরম ব্যস্ত। সেটা ধার বা দেনা করে হোক। এ ধারাবাহিকতায় করোনাকে
করোনাকে পুঁজি করে লকাউনে যাতায়াত ব্যবস্থার ভাড়া বাড়তির অজুহাত যেন দৌলতপুর পাইকারী খুচরা সবজির গায়ে যেন আগুন। ঝিঙে, পটল, কচু,কচুরলতি, আলু, কলা, বেগুন, লাউ, লালশাক, সীম, চাল কুমড়াসহ প্রভৃতি সবজির দাম সীমাহীন বৃদ্ধি পেয়েছে যা ক্রেতাদের ক্রয়ের নাগালের বাইরে। এ বিষয়ে দৌলতপুর বাজার সবজি বিক্রেতা কাদের বলেন, করোনা প্রভাব আর লকডাউনেরর কারণে সবজি সরবরাহ কম তাই সবজির বাজার অনেকটাই উর্ধমূখি। এ বিষয়ে দৌলতপুর বাজার খুচরা কাচাঁমাল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি শেখ পলাশ হোসেন বলেন, লকাউনের কারণে বাজারে সবজি সরবরাহ কম তাই দাম একটু বেশি। তাছাড়া লকডাউনে পরিবহন খাতে ভাড়া বৃদ্ধির প্রভাব ও পড়ছে। সরেজমিনে, কেবলমাত্র কাচা সবজি নয় ববং করোনা আর লকডাউনের অজুহাতে প্রায় প্রতিটি নিত্যপ্রয়োজনী দ্রব্য চিনি, ডাল, তেল, চাল, আলু, জিরা, ছোলা, চিড়া, মুড়ি, গুড়, শষা, লেবু, কলা, মৌসুমি ফলসহ মাছ মাংসের দামও বৃদ্ধি পেয়েছে। সর্বপরি করোনাকে পুজিকরে দৌলতপুরে ব্যবসায়ীরা অধিংকাশের প্রায় প্রতিটি পন্যের দাম বাড়তি নিচ্ছে যার স্বীকার হচ্ছে সাধারণ ক্রেতারা।

 

(ঊষার আলো-আরএম)

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ