UsharAlo logo
শনিবার, ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

অভিনয় থেকে দূরে থাকার কারণ জানালেন বাঙালি নায়িকা রিমি সেন

usharalodesk
জুন ২৭, ২০২৪ ৩:৫৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বিনোদন ডেস্ক : রিমি সেন। বলিউডে দুই দশকের পথচলা। বড়পর্দায় অভিনয়জগতে শুরু। যাত্রা শুরুর আগে নাম পরিবর্তন করেছিলেন তিনি। বড় বড় শক্তিমান অভিনেতাদের সঙ্গে অভিনয় করেছেন। অক্ষয় কুমার, অমিতাভ বচ্চন, সালমান খান, অভিষেক বচ্চন, অজয় দেবগনের মতো তারকাদের সঙ্গে স্কিন শেয়ার করেছেন। কিন্তু যত দ্রুততার সঙ্গে তিনি জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন, ঠিক ততটাই দ্রুত বলিউড থেকে হারিয়ে গেছেন বাঙালি অভিনেত্রী রিমি সেন।

২০০০ সালে অপর্ণা সেনের পরিচালনায় ‘পারমিতার একদিন’ ছবিতে প্রথম অভিনয় করেন রিমি সেন। যদিও পার্শ্বচরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পান তিনি। ২০০৩ সালে বলিউডে ‘হাঙ্গামা’ ছবি দিয়ে আত্মপ্রকাশ করেন রিমি। অক্ষয় খন্না, পরেশ রাওয়াল ও আফতাব শিবদাসানির সঙ্গে এ ছবিতে অভিনয় করেন তিনি। ‘হাঙ্গামা’ ছবিতে অভিনয় করেন নবাগত অভিনেত্রী হিসাবে। ছবি মুক্তির পর রাতারাতি প্রচারে আসেন রিমি। এরপর অমিতাভ বচ্চন ও হেমা মালিনীর ছবি ‘বাগবান’-এ পার্শ্বচরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পান। ২০০৪ সালে ‘ধুম’ ছবিতে অভিষেক বচ্চনের সঙ্গে জুটি বেঁধে বলিউডে জনপ্রিয় হয়ে যান রিমি। এর পর একের পর এক হিন্দি ছবির প্রস্তাব পেতে থাকেন তিনি। এমনকি দুটি তেলেগু ছবিতে অভিনয় করেন রিমি সেন।

একাধিক ছবিতে অভিনয়ের পাশাপাশি বাংলা বিজ্ঞাপনেও অভিনয় করেন রিমি সেন। আমির খানের মতো তারকার সঙ্গেও বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন তিনি। খুব অল্প সময়ের মধ্যে বিজ্ঞাপনের জগতে পরিচিতি লাভ করেন রিমি। এক দশক বলিউডে থাকলেও হঠাৎ করেই ছবির সংখ্যা কমে যেতে থাকে তার ক্যারিয়ারের ঝুলিতে। ২০১১ সালে পরিচালক তিগমাংশু ধুলিয়ার ‘শাগির্দ’ ছবিতে শেষবার বড়পর্দায় দেখা যায় রিমি সেনকে। দীর্ঘ বিরতির পর আবার হাজির হন। তবে এবার আর ক্যামেরার সামনে নয়, ক্যামেরার পেছনে। অভিনয় থেকে সরে যাওয়ার পর জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত ‘বুধিয়া সিংহ’ নামে একটি ছবির প্রযোজনা করেন রিমি।

বলিউডে প্রথম সারির তারকাদের সঙ্গে অভিনয় করেছেন রিমি। কিন্তু এখন কারও সঙ্গেই যোগাযোগ রাখেন না তিনি। বলেন, ‘আমি কারও কাছে সাহায্য চাইতে পারি না। সবাই তো নিজের সুবিধাটাই দেখেন। গায়ে পড়ে কেউ অন্য কাউকে সাহায্য করতে চান না। যতক্ষণ না  আপনি অন্য কারও হাতে-পায়ে পড়ছেন, ততক্ষণ কেউ আপনাকে সাহায্য করবে না। আমি তো এসব করতে পারি না।’

রিমি আরও বলেন, ‘অভিনয় দক্ষতা তো অনেক পরের হিসাব। আপনি লোকজনের সঙ্গে কতটা মিশতে পারছেন, সেটিই আসল হিসাব। তা না হলে কিছুই হবে না। সারাজীবন ঘরের এক কোনে পড়ে থাকতে হবে। আমি নিজেকে তো বিক্রি করতে পারি না।’

এদিকে রিমি ২০১৭ সালে রাজনীতিতে নাম লেখান। বিজেপিতে যোগ দেন। এর পর ২০২২ সালে বিজেপি থেকে কংগ্রেসে যোগ দেন তিনি। কিন্তু মূল স্রোতের রাজনীতিতে সেভাবে দেখা যায়নি তাকে।

সম্প্রতি চার কোটি টাকা প্রতারণার শিকার হন রিমি। অভিনেত্রীর দাবি, বছর তিনেক আগে মুম্বাইয়ের অন্ধেরির এক জিমে রৌণক যতীন ব্যাস নামে এক ব্যবসায়ীর সঙ্গে আলাপ হয়েছিল রিমি সেনের। অল্প সময়ের মধ্যেই ভালো বন্ধুত্ব হয় তাদের মধ্যে। এরপর তাকে একটি নতুন ব্যবসায়িক উদ্যোগে বিনিয়োগের প্রস্তাব দিয়েছিলেন রৌণক। বিনিয়োগ করলে ২৮ থেকে ৩০ শতাংশ লাভ উঠবে— এমনটিই প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তিনি। নিজের প্রযোজনা সংস্থার টাকায় ওই বিনিয়োগ করেছিলেন রিমি। অভিনেত্রীর অভিযোগ— লাভ তো দূরে থাক আসল টাকাই ফেরত পাননি তিনি। পরে রৌণকের বিরুদ্ধে চার কোটিরও বেশি টাকার প্রতারণার অভিযোগ করেন অভিনেত্রী।

এফআইআরে রিমি জানান, ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে জুলাই মাসের মধ্যে ব্যবসায় এক কোটি টাকা লগ্নি করেন তিনি। রৌণক তখন প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, পরবর্তী বিনিয়োগে রিমিকে কিছু লভ্যাংশ দেবেন। সেই মতো ২০১৯ সালের অক্টোবর থেকে ২০২০ সালের নভেম্বর মাসের মধ্যে আরও তিন কোটি ১৪ লাখ টাকা লগ্নি করেন অভিনেত্রী। কিন্তু প্রতিশ্রুতিমতো কোনো টাকাই রৌণক দেননি বলে দাবি করেন রিমি।

রিমির অভিযোগ, প্রতিশ্রুতি মোতাবেক টাকা না পেয়ে চুক্তির অংশ হিসাবে সিকিউরিটি বাবদ রৌণকের দেওয়া সাড়ে তিন কোটি টাকার চেক ভাঙাতে যান তিনি। চেক ভাঙাতে গিয়ে জানতে পারেন, সেই অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করা রয়েছে। রিমি বুঝতে পারেন, তিনি প্রতারণার শিকার হয়েছেন।

তিনি বলেন, টাকার পাশাপাশি কিছুটা ব্যক্তিগত বিষয়েও জড়িয়েছে এ প্রতারণার সঙ্গে। আমার আবেগে আঘাত করেছে সে। বন্ধু হিসাবে আমার বাড়িতেও গিয়েছিল ও। আমার মায়ের সঙ্গে বসে খাওয়াদাওয়াও করেছে রৌণক। কিন্তু ভাবতেও পারিনি সে আমার সঙ্গে এমন করবে।

রিমির প্রতারণাকাণ্ডের দায়িত্ব নিয়েছে সিআইডি। ২০২২ সালে মুম্বাইয়ের খার থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের পর সিআইডি তদন্তের দায়িত্ব নেয়। তিনি বলেন, আমি নিশ্চিত, ন্যায্য বিচার পাব।

২০১৫ সালে ছোটপর্দার জনপ্রিয় রিয়্যালিটি শো ‘বিগ বস্’-এ প্রতিযোগী হিসাবে অংশগ্রহণ করেন রিমি। কিন্তু কয়েক সপ্তাহ পর সেই শো থেকে বাদ প়ড়ে যান। কানাঘুষা শোনা যায়, প্রতিযোগিতায় তেমন সক্রিয় ছিলেন না বলে শো থেকে বাদ দেওয়া হয় তাকে।

ঊষার আলো-এসএ